সোমবার, ২০ নভেম্বর ২০১৭, ০৩:২৮

জাতীয়
শুক্রবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০১৭ ১০:২৩:১১ পূর্বাহ্ন Zoom In Zoom Out No icon

সুখবর নেই তিস্তা ইস্যুতে, আরো সময় চায় নয়াদিল্লি

 

 

ঢাকা: এপ্রিলে ভারত সফরে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। কিন্তু এবারো বহুল আলোচিত তিস্তার পানিবণ্টন চুক্তি হচ্ছে না। হচ্ছে না গঙ্গা বাঁধ নির্মাণ চুক্তিও। এ দুইটি চুক্তির জন্য ঢাকার কাছে আরো সময় চেয়েছে নয়াদিল্লি। বৃহস্পতিবার ঢাকায় বাংলাদেশ-ভারতের পররাষ্ট্র সচিব পর্যায়ের বৈঠকে চুক্তি দু'টি নিয়ে আলোচনা হলেও শিগগিরই কোন সুখবর মিলছে না। তবে বাংলাদেশের উন্নয়নের জন্য একগুচ্ছ প্রকল্পে অর্থায়ন করতে চতুর্থ লাইন অব ক্রেডিট (এলওসি) আওতায় প্রায় ৩০ হাজার কোটি টাকার ঋণের ঘোষণা দিতে পারে ভারত। ভারতের পররাষ্ট্র সচিব ড. সুব্রামানিয়াম জয়শঙ্কর বৃহস্পতিবার দুপুরে দু'দিনের ঝটিকা সফরে ঢাকা এসে বিকেলে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। প্রধানমন্ত্রীকে ভারতের রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জির আমন্ত্রণ পৌঁছে দেয়া হয়। তারপরই প্রধানমন্ত্রীর ভারত সফরের দিনক্ষণ জানান তার উপ-প্রেসসচিব এম নজরুল ইসলাম। এবার ভারত সফরে দেশটির রাষ্ট্রপতি ভবনে থাকবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বাংলাদেশের কোনো প্রধানমন্ত্রীর ক্ষেত্রে এটিই প্রথম ঘটনা। রাতে পররাষ্ট্র সচিব মো. শহীদুল হকের সাথে দ্বি-পক্ষীয় বৈঠকে অংশ নেন জয়শঙ্কর। বৈঠক শেষে রাতে মো. শহীদুল হক সাংবাদিকদের বলেন, এই বৈঠকটি ছিল প্রধানমন্ত্রীর ভারত সফরের এজেন্ডা সেটিংয়ের। আঞ্চলিক কানেক্টিভিটি, মিলিটারি কো অপারেশন, তিস্তা পানিবন্টন, বর্ডার কিলিং বন্ধ ও গঙ্গা ব্যারাজ প্রকল্প নিয়ে এ বৈঠকে আলোচনা হয়েছে। তিস্তা পানিবন্টন চুক্তি সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি এ ব্যাপারে আশাবাদী। বাংলাদেশ-ভারত দুই দেশের প্রতিরক্ষা ও নিরাপত্তা বিষয়ক একটি সহযোগিতা চুক্তির জন্য সম্মত হয়েছে দুই পররাষ্ট্র সচিব। প্রধানমন্ত্রীর সফরে এ চুক্তিটি স্বাক্ষিত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। বিদ্যুৎ ও জ্বালানি, অবকাঠামো উন্নয়ন, অর্থনৈতিক অঞ্চল উন্নয়ন, সড়ক ও রেলযোগাযোগ উন্নয়নসহ একাধিক খাতের কমবেশি ২০টি উন্নয়ন প্রকল্পের একটি তালিকা দিয়েছে ঢাকা। শুক্রবার সকালে দিল্লির উদ্দেশে তার ঢাকা ছেড়ে যাওয়ার কথা রয়েছে।

সর্বশেষ খবর